ওযুর বিস্তারিত (ফরয, সুন্নত, ভঙের কারণ)

সালাত দ্বীন-ইসলামের পাঁচটি মূল স্তম্ভের মধ্যে অন্যতম। ইবাদতের মধ্যে সালাত সর্বশ্রেষ্ঠ ইবাদত। দৈনিক আমাদের জন্য পাঁচবার সালাত আদায় করা ফরজ। আর সালাত আদায়ের পূর্বশর্ত ওযু। (বিশেষ কারণ ছাড়া) ওযু ছাড়া সালাত আদায় হয়না। তাই, পূর্ণাঙ্গভাবে ওযু আদায় করা আমাদের অবশ্য কর্তব্য। আজ তাই আমরা জানার চেষ্টা করবো ওযুর ফরয, সুন্নত ও ওযু ভঙ্গের কারণ সম্পর্কে।

ওযুর ফরজ- ওযুর ফরজ চারটি। যথা: ১. মুখমণ্ডল ধােয়া, ২. কনুইসহ উভয় হাত ধােয়া, ৩. চার ভাগের এক ভাগ মাথা মাসাহ করা, ৪. গিরাসহ উভয় পা ধােয়া।

অর্থাৎ উপরের কাজগুলো আমাদের করতেই হবে ওযু করার জন্যে।এছাড়া ওযু হবেনা।

ওযুর সুন্নত- ওযুর সুন্নত ১১ টি। যথা: ১. নিয়ত করা, ২. বিসমিল্লাহ বলে ওযু আরম্ভ করা, ৩. দাঁত মাজা, ৪. কবজি পর্যন্ত দুই হাত তিনবার ধােয়া, ৫. তিনবার কুলি করা, ৬. পানি দিয়ে তিনবার নাক সাফ করা, ৭. প্রত্যেক অঙ্গ তিনবার ধােয়া, ৮. কান মাসাহ করা, ৯. হাত-পা ধােয়ার সময় ডান হাত ও ডান পা আগে ধােয়া, ১০. সম্পূর্ণ মাথা একবার মাসাহ করা, ১১. ওযুর কাজগুলাে ধারাবাহিকভাবে পর পর করা।

ওযু নষ্ট হওয়ার কারণ- নানা কারণে ওযু নষ্ট হয়। এগুলাের প্রতি আমাদের খেয়াল রাখতে হবে। যেসব কারণে ওযু নষ্ট হয় তা হলাে: ১. পেশাব বা পায়খানার রাস্তা দিয়ে কিছু বের হলে, ২. মুখ ভরে বমি করলে, ৩. কোনাে কিছু ঠেস দিয়ে বা শুয়ে ঘুমিয়ে পড়লে, ৪. অজ্ঞান হলে, ৫. রক্ত বা পুঁজ বের হয়ে শরীর থেকে গড়িয়ে পড়লে, ৬. সালাতের মধ্যে উচ্চস্বরে হেসে ফেললে।

আমরা ওযুর ব্যাপারে সচেতন থাকার চেষ্টা করব।আল্লাহ আমাদের সবার ওযু ও সালাত কবুল করুন।আমীন

Share this post on..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *